কারোর নেই এই রেকর্ড! দেখে নিন ওয়ানডেতে হিটম্যানের ৬টি ১৫০-র বেশি রানের ইনিংস

রবিবার (২২ অক্টোবর) গুয়াহাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ভারতের সহঅধইনায়ক তথা ওপেনার রোহিত শর্মা ১১৭ বলে ১৫২ রানের আরও একটি অসামান্য ইনিংস খেলেছেন। অধিনায়ক বিরাট কোহলি ফিরে যাওয়ার পরও শেষ অবধি অপরাজিত থেকে ভারতে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন রোহিত।

কারোর নেই এই রেকর্ড! দেখে নিন ওয়ানডেতে হিটম্যানের ৬টি ১৫০-র বেশি রানের ইনিংস

বিরাটের ইনিংস তাঁর ইনিংসকে দ্বিতীয় স্থানে ঠেলে দিলেও গুয়াহাটিতে 'হিটম্যান' এমন একটি রেকর্ড গড়লেন যা ক্রিকেট ইতিহাসে আর কারোর নেই। রবিরারের অপরাজিত ১৫২ রানের ইনিংস নিয়ে একদিনের ক্রিকেটে সবমিলিয়ে তাঁর ৬টি ১৫০ বা তার বেশি রানের ইনিংস খেলা হয়ে গেল যারমধ্যে ৩টি দ্বিশতরান রয়েছে। ১৫০-র বেশি রানের ইনিংস খেলার দৌড়ে তিনি টপকে গেলেন সচিন তেন্ডুলকর ও ডেভিড ওয়ার্নারকে।

এই সুযোগে মাইখেল বেঙ্গলি হিটম্যানের এই ৬টি ১৫০-র বেশি রানের ইনিংস ফিরে দেখল।

২০৯ বনাম অস্ট্রেলিয়া, বেঙ্গালুরু, ২০১৩

২০৯ বনাম অস্ট্রেলিয়া, বেঙ্গালুরু, ২০১৩

বেঙ্গালুরুতে তাঁর খেলা এই ইনিংসটি ছিল একদিনের ক্রিকেটের ইতিহাসের তৃতীয় দ্বিশতরান। আগের দুই ওডিআই দ্বিশতরানকারীও ছিলেন ভারতীয় -সচিন তেন্ডুলকর ও বীরেন্দ্র সেওয়াগ। সেই তালিকা.য় রোহিত নিজের নাম যোগ করেছিলেন ১৫৮ বলে ২০৯ (১১x৪, ১৬x৬) রানের ইনীংস খেলে। ভারত প্রথমে ব্যাট করে তুলেছিল ৩৮৩/৬। জবাবে জেমস ফকনারের শতরান (৭৩ বলে ১১৬) এবং গ্লেন ম্যাক্সওয়েল (২২ বলে ৬৬) ও শেন ওয়াটসন (২২ বলে ৪৯) রানের ক্যামিও ইনিংসের ফলে লক্ষ্যের অনেকটা কাছে পৌঁছেছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৫৭ রানে হারতে হয়।

২৬৪ বনাম শ্রীলঙ্কা, কলকাতা, ২০১৪

২৬৪ বনাম শ্রীলঙ্কা, কলকাতা, ২০১৪

এখনও পর্যন্ত এটিই ওয়ানডেতে ১ ইনিংসে কোনও ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ রান। তবে রোহিত যেভাবে এগোচ্ছেন তাতে এই রেকর্ডটি তিনি নিজেই হয়ত অদূর ভবিষ্যতে ভেঙে দেবেন। ১৭৩ বলে ৩৩টি চার ও ৯টি ছয় মেরে ২৬৪ রান করেছইলেন হিটম্যান। যার দৌলতে ইডেন গার্ডেনে ৫০ ওভারে ভার মাত্র উইকেট হারিয়ে ৪০৪ রানের পাহাড় গড়েছিল। ব্যাট করতে নামার আগেই রোহিতের ইনিংস যেন শ্রীলঙ্কার জেতার ইচ্ছেটাই কেড়ে নিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত ধবল কুলকার্নি (৩৪/৪)-এর বোলিংয়ের সামনে আত্মসমর্পণ করে ১৫৩ রানের বিশাল ব্যবধানে ম্যাচ হারে শ্রীলঙ্কা।

১৫০ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা, কানপুর, ২০১৫

১৫০ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা, কানপুর, ২০১৫

প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভারে এবি ডেভিলিয়ার্স (৭৩ বলে ১০৪*, ৫x৪, ৬x৬)-এর দুরন্ত শতরান ও দুপ্লেসিসের ৬২ রানের ইনিংসের ও শেষে ১৯ বলে বেহারদিয়েনের ঝোড়ো ৩৫ রানের দৌলতে দক্ষিণ আফ্রিকা ৩০৩/৫ তুলেছিল। ভারতে হয়ে পাল্টা জবাব দিতে শুরু করেছিলেন রোহিত। ১৩৩ বলে ১৫০ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ইনিংসে ছিল ১৩টি ৪ ও ৬টি ছয়। কিন্তু ৪৭তম ওভারের প্রথম বলে তিনি আউট হওয়ার পরই (ভারত ছিল ২৬৯/৪) মিডল ও লোয়ার মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় ভারত সেই ম্যাচ খোয়ায়। হারতে হয় মাত্র ৫ রানে।

১৭১* (বনাম অস্ট্রেলিয়া, পার্থ, ২০১৬),

১৭১* (বনাম অস্ট্রেলিয়া, পার্থ, ২০১৬),

এটি ছিল ২০১৬ অস্ট্রেলিয়া সফরের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ৫০ ওভারে ৩০৯/৩ তুলেছিল। রোহিত খেলেছিলেন ১৬৩ বলে ১৭১ রানের ঝকঝকে একটি ইনিংস। মেরেছিলেন ১৩টি চার ও ৭টি ছক্কা। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়েছিলেন অধিনায়ক বিরাট (৯৭ বলে ৯১, ৯x৪, ১x৬)। কিন্তু অস্ট্রেলিয়া স্টিভ স্মিথ (১৩৫ বলে ১৪৯, ১১x৪, ২x৬) ও জর্জ বেইলি (১২০ বলে ১১২, ৭x৪, ২x৬)-র জোড়া শতরানে ৪ বল বাকি থাকতে ম্যাচ জিতে নিয়েছিল।

২০৮* (বনাম শ্রীলঙ্কা, মোহালি, ২০১৭),

২০৮* (বনাম শ্রীলঙ্কা, মোহালি, ২০১৭),

ভারত সফরে এসে সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। এই সিরিজে খেলেননি বিরাট কোহলি। তাঁর বদলে দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব ছিল রোহিতের কাঁধেই। প্রথম ম্যাচে ারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে অসক্থায়ী অধিনায়ক নিজেই ভারতের জয় নিশ্চিত করেছিলেন। এটি ছিল তাঁর তৃতীয় দ্বিশতরান। তাঁর সঙ্গে বেশ ভাল শুরু করেছিলেন শিখর ধাওয়ান (৬৭ বলে ৬৮, ৯x৪)। তিনি আউট হওয়ার পর নবাগত শ্রেয়স আইয়ার (৭০ বলে ৮৮, ৯x৪, ২x৬)-কে সঙ্গে নিয়েই এগিয়ে যান রোহিত। ১৫৩টি বল খেলে ২০৮ রান করেছিলেন। মেরেছিলেন ১৩টি চার ও ১২টি ছয়। ভারত তুলেছিল ৩৯২/৪। জবাবে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস (১৩২ বলে ১১১, ৯x৪, ৩x৬)-এর শতরান সত্ত্বেও শ্রীলঙ্কা ৫০ ওভারে ২৫১ রানের বেশি এগোতে পারেনি।

১৫২* (বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ, গুয়াহাটি, ২০১৮)

১৫২* (বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ, গুয়াহাটি, ২০১৮)

গুয়াহাটিতে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের প্রথম ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে তরুণ হেতমিয়ার (৭৮ বলে ১০৬, ৬x৪,৬x৬)-এর মারকাটারি ব্যাটিংয়ের সৌজন্যে ৫০ ওভারে ৩২২/৮ রান তুলেছিল। লক্ষ্যমাত্রাটি খাতায় কলমে বেশ বড় দেখালেও ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও রোহিত অন্য স্তরের ব্যাট করে সেই লক্ষ্যকেও খুব সামান্য করে তোলেন। ম্যান অব দ্য ম্যাচ বিরাট (১০৭ বলে ১৪০, ২১x৪, ২x৬)-এর পাশাপাশি সমানে তাল মিলিয়েছিলেন সহঅধিনায়কও (১১৭ বলে ১৫২, ১৫x৪, ৮x৬)।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Story first published: Monday, October 22, 2018, 19:30 [IST]
    Other articles published on Oct 22, 2018
    POLLS

    পান মাইখেল-এর ব্রেকিং নিউজ অ্যালার্ট
    mykhel Bengali

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Mykhel sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Mykhel website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more