আইএসএল ২০১৮-১৯, এই মরসুমে নতুন সই করা সেরা দশ বিদেশী ফুটবলার কারা, জেনে নিন

আইএসএল-এর প্রথম তিন বছরে বিশ্বের বিভিন্ন লিগে খেলা নামি দামি অনেক ফুটবলারই এসেছিলেন খেলতে। দেখা গিয়েছিল দেল পিয়েরো, আনেলকা, রবার্তো কার্লোসদের একসময়ের বিশ্বতারকাদের। কিন্তু তাঁরা আসতেন অনেকটাই ছুটি কাটানোর মেজাজে। বলা যেতে পারে ইন্ডিয়ান সুপার লিগ তাঁদের কাছে ছিল অনেকটাই ছুটির ফাঁকে খেপ খেলার মতো।

আইএসএল ২০১৮-১৯, এই মরসুমে সই করা সেরা দশ বিদেশী

কিন্তু, গত মরসুমেই লিগের দৈর্ঘ্য ৩ মাস থেকে বেড়ে ৫ মাসের হওয়াতে এই 'ছুটি কাটানো' বিদেশী ফুটবলার-কোচদের হাত থেকে মুক্ত হয়েছে আইএসএল। বস্তুত প্রথম কয়েক বছরে লিগের আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য ও প্রচারের কারণে এঁদের প্রয়োজন ছিল, কিন্তু ফুটবলের উন্নয়নে এঁদের উপস্থিতি কাজে আসেনি। তাই গত মরসুম থেকেই লিগের বিভিন্ন দলে দেখা যাচ্ছে সিরিয়াস ফুটবলারদের ভিড়। আইএসএল এখন আর বিনোদনের ফুটবল নয়, ফুটবলের বিনোদন।

শনিবার শুরু হয়েছে নয়া আইএসএল মরসুম। দেখে নেওয়া যাক এবার লিগে খেলা সেরা ১০ বিদেশী ফুটবলারদের।

টিম কাহিল

টিম কাহিল

কোনও ভূমিকা প্রয়োজন নেই। সকারু অর্থাত অস্ট্রেলিয় ফুটবলের কিংবদন্তী তিনি। বয়স ৩৮ পার হলেও খেলেছেন এই বছরের বিশ্বকাপেও। জাতীয় দল থেকে অবসরের পর তিনি এসেছেন আইএসএল-এ তাঁর ছাপ রাখতে। জামশেদপুর এফসি-তে সই করেছেন তিনি। খাতায় কলমে তিনি এবারের আইএসএলের সেরা ফুটবলারদের অন্যতম। আর তাঁর অভিজ্ঞতার জুড়ি প্রায় নেই বললেই চলে। কাজেই মাঠের ভিতরে ও বাইরে তিনি এইবছর জামশেদরপুরের দলটিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছেন।

পাওলো মাশাদো

পাওলো মাশাদো

হোসে মোরিনহো পোর্তোর কোচ থাকাকালীন মাশাদোর বেশিরভাগ সময়ই কাটতো রিজার্ভ বেঞ্চে। কিন্তু মোরিনহো চেলসিতে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি প্রথম দলে নিয়মিত সুযোগ পেতে শুরু করেন। এই মিডফিল্ডারের পর্তুগাল, ফ্রান্স, গ্রীস এবং ক্রোয়েশিয়ার প্রথম সারির লিগে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। ২০০৩ সালের অনুর্ধ ১৭ ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল দলের সদস্যও ছইলেন। এবার তিনি সামলাবেন মুম্বই সিটি এফসির সেন্টার মিডফিল্ড।

বার্থালোমিউ ওগবেচে

বার্থালোমিউ ওগবেচে

তিনি সই করেছেন নর্থইস্ট ইউনাইটেড এফসি-তে। বিভিন্ন লিগে খেলোর দৌলতে তাঁর অভিজ্ঞতার ভান্ডার বিশাল। এবার ভারতের লিগে খেলার জন্য উদগ্রীব এই নাইজেরিয় ফরোয়ার্ড। নর্থইস্ট ইউনাইটেডের হয়ে গোল করার মূল দায়িত্ব এবার তাঁরই কাঁধে।

আন্দ্রিয়া কালুজেরোভিচ

আন্দ্রিয়া কালুজেরোভিচ

এই বছর সার্বিয়ান ফুটবলার আন্দ্রিয়া কালুজেরোভিচকে সই করিয়ে তাদের ফরোয়ার্ড লাইনকে মজবুত করেছে দিল্লি ডায়নামোস এফসি। গত মরসুমেও এই সেন্ট্রার ফরোয়ার্ড সার্বিয়ার সুপারলিগের দলের প্রতিনিধি ছিলেন। ফুটবল জীবনের মধ্যগগনে তিনি জাতীয় দলেও খেলতেন।

জোনাথন ভিলা

জোনাথন ভিলা

কেরিয়ারের বেশিরভাগ সময়টা স্প্যানিশ লিগেই খেলেছেন জোনাথন ভিলা। আইএসএল-এ বরাবর স্প্যানিশ ফুটবলার ও ম্যানেজারদের ভিড় বেশি। কাজেই সেল্টা ভিগোর এই প্রাক্তন ফুটবলারের পক্ষে এই লিগে মানিয়ে নেওয়াটা সহজই হবে। এই বছর এফসি পুনে সিটির প্রধান প্লেমেকারের ভূমিকা তিনিই নেবেন আশা করা হচ্ছে।

মাতেজ পপ্লাতনিক

মাতেজ পপ্লাতনিক

এই বছর কেরল ব্লাস্টার্স এফসি থেকে বিদায় নিয়েছেন দিমিতার বারবাতোভ। তাঁর অভাব পূরণ করতে কোচির ফ্র্যাঞ্চাইজিটি নিয়ে এসেছে স্লোভানিয়ার স্ট্রাইকার মাতেজ পপ্লাতনিককে। ২৬ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড গত মরসুমে স্লোভানিয়ার ক্লাব এন কে ত্রিগ্লাভ ক্রাঞ্জ দলের হয়ে ৬৮ ম্যাচে ৪৬ গোল করেছিলেন। আইএসএল-এ শুরু করেছেন সেখান থেকেই। এবারের আইএসএল-এ স্কোরশিটে প্রথম নাম উঠেছে তাঁরই।

মারিও আর্কেস

মারিও আর্কেস

এই স্প্যানিশ ফুটবলার ফুটবলের পাঠ নিয়েছিলেন ভিয়ারিয়ালে। যুব দল থেকে সিনিয়র দলেও খেলেছেন। এছাড়া ছিলেন এলচে এবং স্পোটিং গিহনের রিজার্ভ টিমেও। ২৬ বছর বয়সী এই মিডফইল্ডার এইবার জামশেদপুর এফসির মিডফিল্ডের নেতৃত্বে।

মিগেল পালাঙ্কা

মিগেল পালাঙ্কা

মানুয়েল লাঞ্জারোতের বদলে তাঁকে দলে নিয়েছে এফসি গোয়া। কাজেই তাঁর দায়িত্বটা অনেক বড়। তবে এই স্প্যানিশ কেরিয়ারের এক পর্যায়ে রিয়াল মাদ্রিদ দলেও খেলেছেন। গোয়া দলের ফেরান কোরোমিনাসের প্রেরণাতেও তিনি ভারতে খেলতে এসেছেন। কোরোমিনাসের সঙ্গে এর আগে স্প্যানিশ লিগে এসপানিওল ও এলচে ক্লাবে খেলেছেন পালাঙ্কা। কাজেই আইএসএল-এ এবার এই দুজনের এক মারাত্মক সমন্বয় দেখা যেতে পারে।

আন্দ্রেয়া ওরলান্দি

আন্দ্রেয়া ওরলান্দি

স্প্যানিশ এই ফুটবলারটি অপরিসীম অভিজ্ঞত সম্পন্ন। খেলেছেন স্পেন, ইংল্যান্ড, সাইপ্রাস ও ইতালিতে। এবার তিনি খেলবেন চেন্নাইয়ান এফসির হয়ে। মিডফিল্ডের এই ফুটবলারটি সেট পিস বিশেষজ্ঞ। তার উপর বাঁপায়ের এই ফুটবলারটি ভাল প্লেমেকারও।

সিসকো এর্নান্দেজ

সিসকো এর্নান্দেজ

বেঙ্গালুরু এফসির মিডফিল্ডে সৃষ্টিশীলতার অভাব থছিল না। তা আরও বাড়াতে এসে গিয়েছেন স্প্যানিশ ক্লাব মায়োর্কার প্রাক্তন খেলোয়াড় সিসকো। বেঙ্গালুরুর এএফসি কাপের কেলাগুলিতে তাঁকে উইঙ্গারের পজিশনে কার্যকরী ভূমিকায় দেখা গিয়েছে। এবার তিনি নিশ্চিতভাবেই বেঙ্গালুরুর পক্ষে এক্স ফ্যাক্টর হয়ে উঠতে পারেন।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Story first published: Sunday, September 30, 2018, 16:39 [IST]
    Other articles published on Sep 30, 2018
    ভারতের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক ভোট। আপনি কি এখনও অংশগ্রহণ করেননি ?
    + আরও
    POLLS

    পান মাইখেল-এর ব্রেকিং নিউজ অ্যালার্ট
    mykhel Bengali

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Mykhel sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Mykhel website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more