আসছে বিশ্বকাপ, সেজে উঠছে ভূবনেশ্বর - কীভাবে মিলে যাচ্ছে ঐতিহ্য ও আধুনিকতা, দেখুন

হাতে আর একমাসও নেই। আগামী ২৮ নভেম্বর থেকেই ওড়িশার ভূবনেশ্বরে শুরু হতে চলেছে পুরুষদের হকি বিশ্বকাপ। এই নিয়ে তৃতীয়বার ভারতে আয়োজিত হচ্ছে এই টুর্নামেন্ট। আর তা নিয়ে এখন ভূবনেশ্বর শহর জুড়ে সাজো সাজো রব।

আসছে বিশ্বকাপ, সেজে উঠছে ভূবনেশ্বর - কীভাবে মিলে যাচ্ছে ঐতিহ্য ও আধুনিকতা, দেখুন

সাধারণ মানুষের মধ্যেও আসন্ন এই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা নিয়ে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। শহরের অন্যতম বড় শপিং মল এস্প্ল্যানেডে হকি বিশ্বকাপ ট্রফির একটি রেপ্লিকা রাখা হয়েছে। সেটি এখন শহরের অন্যতম সেলফি হটস্পট! শুধু কলিঙ্গ স্টেডিয়ামকেই (যেখানে ম্যাচগুলি খেলা হবে) নবরূপে গড়ে তোলা নয়, হকি বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে ভারতে আগত বিদেশী পর্যটকদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা চলছে ওড়িশার শিল্প-সংস্কৃতি ঐতিহ্যকও।

কলিঙ্গ স্টেডিয়ামের মেকওভার

কলিঙ্গ স্টেডিয়ামের মেকওভার

হকি বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে অনেক পরিবর্তন করা হচ্ছে। গ্যালারিতে আসন সংখ্য়া বাড়িয়ে প্রায় প্রায় ১৫,০০০ করা হয়েছে। নতুন ভিআইপি বক্স, নতুন প্রেসবক্স, অত্য়াধুনিক বিশ্বমানের ড্রেসিংরুম কলিঙ্গ স্টেডিয়ামের চেহারাটাই পাল্টে দিয়েছে। বদলানো হয়েছে মূল মাঠ ও অনুশীলনের টার্ফও।

ভূবনেশ্বর আর্ট ট্রেইল

ভূবনেশ্বর আর্ট ট্রেইল

তবে ভূবনেশ্বর ডেভেলপমেন্ট অথরিটি শহরকে যেভাবে সাজিয়ে তুলছে তার কাছে কলিঙ্গ স্টেডিয়ামের নবরূপও ম্লান হয়ে যাচ্ছে। শহরের পুরনো অংশে ১.৩ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে ভূবনেশ্বর আর্ট ট্রেইল। আগামী একমাস সেখানে ওড়িশার বিভিন্ন প্রান্তের শিল্পীর থাকবেন। বিশ্বকাপের আগেই সেই রাস্তায় তাঁরা তুলে ধরবেন ওডি়শার বিভিন্ন শিল্প-ঐতিহ্যকে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক শিল্পীদের কাজও থাকবে সেখানে।

ওল্ড ইজ গোল্ড

ওল্ড ইজ গোল্ড

ভূবনেশ্বর বেশ পুরনো শহর। পুরনো ভূবনেশ্বরের কোনও কোনও স্থাপত্য সেই ষষ্ঠ শতাব্দীতে গড়ে উঠেছিল। ভারতের বেশ কিছু প্রাচীন মঠ রয়েছে ভূবনেশ্বরেই। সেই ইতিহাসকেও তুলে ধরা হবে হকি বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে আসা বিদেশীদের সামনে। শতাব্দী-প্রাচীন সেইসব স্থাপত্য যাতে বিদেশীরা নিজেদের ইচ্ছামতো ঘুরে দেখতে পারেন তার জন্য চালু করা হবে পাবলিক বাইসাইকেল সার্ভিস। তার জন্য ১৫০০ জিপিএস সম্বৃদ্ধ সাইকেল রাখা হচ্ছে।

সংস্কৃতি, খাদ্য, গানবাজনা

সংস্কৃতি, খাদ্য, গানবাজনা

হকি বিশ্বকাপ দেখতে এসে বিদেশীরা সারাক্ষণ খেলা দেখবেন তা তো নয়। যখন খেলা হবে না, সেই ফাঁকা সময়ে তাঁদের ওড়িশার খাদ্য, সংস্কৃতি, গানবাজনা ইত্য়াদির পরিচয় দিতে বিশ্বকাপ চলাকালীন আয়োজন করা হবে বিভিন্ন উৎসবও।

খরচা আছে

খরচা আছে

ভূবনেশ্বর শহরকে সাজিয়ে তোলার ক্ষেত্রে আধুনিকতা ও ঐতিহ্যের চমৎকার মেলবন্ধন ঘটানো হয়েছে। একদিকে যেমন বিভিন্নভাবে প্রাচীন ওড়িশাকে তুলে ধরা হচ্ছে বিদেশীদের সামনে, সেরকম শহরের সর্বত্র বসানো হয়েছে ওয়াইফাই রাউটার। গোটা ভূবনেশ্বর শহরই এখন ফ্রী ইন্টারনেট জোন। এই 'রাজসূয় যজ্ঞ'-এর খরচও নেহবাত কম নয়। টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবর অনুযায়ি সম্পূর্ণ প্রকল্পে খরচ হচ্ছে প্রায় ১০০ কোটি টাকা।

For Quick Alerts
ALLOW NOTIFICATIONS
For Daily Alerts

    Story first published: Tuesday, October 30, 2018, 19:30 [IST]
    Other articles published on Oct 30, 2018
    POLLS

    পান মাইখেল-এর ব্রেকিং নিউজ অ্যালার্ট
    mykhel Bengali

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Mykhel sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Mykhel website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more